মাদক বিক্রি না করায় পোশাক শ্রমিককে ছুরিকাঘাত, বাড়ী ঘর ভাংচুর : গ্রেফতার ২

শীর্ষ সংবাদ

আদিতমারী (লালমনিরহাট) প্রতিনিধিঃ মাদক বিক্রি না করায় লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় আকতার হোসেন (১৯) নামে এক পোশাক শ্রমিককে কুপিয়ে জখম করেছে। এ ঘটনায় করায় দুই আসামঅকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এঘটনায় বুধবার (৩০ জুলাই) রাতে ৯ জনের নামে আদিতমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ মামলা আমলে নিয়ে রাতেই উপজেলার সারপুকুর এলাকা থেকে ২ জন আসামীকে গ্রেফতার করে ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের সর্দারটারী গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে মাছুম মিয়া (৩৩) ও তেলিটারী গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে জিল্লুর রহমান শামীম (৩৮)।

আহত পোশাক শ্রমিক আকতার হোসেন আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের মাষ্টারপাড়া গ্রামের সহিদার রহমানের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, আকতার হোসেন ও তার বড় ভাই ইসমাইল হোসেন ঢাকায় পোশাক শ্রমিকের কাজ করে পরিবার পরিচালনা করে আসছিল। কিছু দিন আগে জন্ডিসে আক্রান্ত হলে চিকিৎসার জন্য দুই ভাই গ্রামের বাড়ি চলে আসেন। এরই মধ্যে তাদের গ্রামের প্রভাবশালী আইনজীবী সহকারী জলিল মুহুরীর ছেলে সুমন মিয়া (২৮) তার কাছ থেকে নিয়ে ইসমাইল ও আকতারকে ইয়াবা খুচরা বিক্রি করতে বলেন। এতে তারা দুই ভাই রাজি না উল্টো পুলিশকে তথ্য দেয়ার কথা জানালো উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে সোমবার (২৯ জুলাই) দিনগত রাতে সুমন মিয়া দলবল নিয়ে ইসমাইলদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর, লুটপাট করে। এ সময় জিবন বাঁচাতে বাড়ি ছেড়ে সবাই অন্যত্র আশ্রয় নেয়। পরদিন মঙ্গলবার সকাল ১১ টার দিকে স্থানীয় কালিস্থান এলাকায় একটি দোকানে আকতারকে দেখতে পেয়ে ছুরি দিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সেবী সুমন মিয়া ও তার লোকজন।

স্থানীয়রা আহত আকতার হোসেনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে আদিতমারী হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত আকতারের বড় ভাই ইসমাইল হোসেন বাদি হয়ে বুধবার (৩০ জুলাই) রাতে আদিতমারী থানায় সুমন মিয়াসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ মামলা আমলে নিয়ে রাতেই উপজেলার অভিযান চালিয়ে সারপুকুর এলাকা থেকে মামলার এজাহার নামীয় দুই আসামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম সাংবাদিককে বলেন, এ ঘটনায় এজাহার নামীয় দুই আসামীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যহত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *