ঢাকা ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উলিপুরে ১২ লাখ ৭০ হাজার টাকা লুট ও গৃহবধূকে লাঞ্ছিত

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার সাহেবের আলগা ইউনিয়নে প্রতিবেশী এক গৃহবধূকে বেধড়ক পিটিয়ে এক ইউপি সদস্যের পুত্র ও স্ত্রী সাড়ে ১২ লাখ টাকা লুট করে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
আহত গৃহবধু বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনায় ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে উলিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন । ঘটনাটি ঘটেছে,(১৫ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় উলিপুর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলে সাহেবের আলগা ইউনিয়নের চর দুর্গাপুরে। এ ঘটনায় বিবাদমান দু’টি গ্রুপের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে চর দুর্গাপুর গ্রামের রাশিদুল ইসলামের স্ত্রী মোছাম্মদ মুন্নি আক্তারের (২৭) সাথে প্রথমে একই গ্রামের প্রতিবেশী ইউপি সদস্য নূর মোহাম্মদ মোল্লার স্ত্রী সুফিয়া বেগমের (৫৫) ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ইউপি সদস্য নূর মুহাম্মদ এর স্ত্রী সুফিয়া বেগম তার দুই পুত্র আব্দুস সবুর (২৫) ও শফিকুল ইসলামকে (২২) সাথে নিয়ে গৃহবধূ মুন্নি আক্তার এর বাড়িতে ঢুকে পড়ে এবং তিনজনে মিলে ঘরের ভিতর তাকে বেদম প্রহার করে তার শ্লীলতাহানি ঘটায়।
এসময় মুন্নি আক্তার মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সংজ্ঞা হারান। এ অবস্থায় ক্ষিপ্ত সুফিয়া বেগম তার ছেলেসহ চুলের মুঠি ধরে মুন্নীকে টেনে হ্যাচরে ঘরের বাহিরে আনার চেষ্টা করে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। বৃহস্পতিবার হাটের দিন হওয়ায় মুন্নি আক্তারের স্বামী ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলেন না।
বাসা ফাকা থাকার সুযোগে ইউপি সদস্যের দুই পুত্র স্টিলের বাক্স ভেঙে তার স্বামীর গরু বেচা কেনার ১২ লাখ ৭০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। খবর পেয়ে মুন্নীর স্বামী ও পিতা বাসায় এসে মুন্নীকে অসুস্থ অবস্থায় প্রথমে নৌকায় উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নে ঘাটে পৌঁছে।পরে অপরিচিত অটো রিকশা যোগে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ এর সাথে কথা হলে ঝগড়ার কথা স্বীকার করে বলেন, তার এক পুত্র শুধু দুইটি থাপ্পর দিয়েছে মুন্নিকে। ট্রাঙ্ক ভেঙ্গে টাকা নেয়ার ঘটনাটি মিথ্যা বলে তিনি দাবি করেন। এ ব্যাপারে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির জানান,এরকম অভিযোগ আসলে ব্যাবস্থা নেয়া হবে, এমন অভিযোগ পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে বলেন দেখতে হবে!।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

Up to BDT 650 benefits on New Connection

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy24

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

Nagad-Fifa-WorldCup

ইতিহাসের এই দিনে: ৪ ফেব্রুয়ারি:-২০২৩

google.com, pub-9120502827902997, DIRECT, f08c47fec0942fa0

উলিপুরে ১২ লাখ ৭০ হাজার টাকা লুট ও গৃহবধূকে লাঞ্ছিত

প্রকাশিত সময়: ০৮:২৪:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার সাহেবের আলগা ইউনিয়নে প্রতিবেশী এক গৃহবধূকে বেধড়ক পিটিয়ে এক ইউপি সদস্যের পুত্র ও স্ত্রী সাড়ে ১২ লাখ টাকা লুট করে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
আহত গৃহবধু বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনায় ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে উলিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন । ঘটনাটি ঘটেছে,(১৫ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় উলিপুর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলে সাহেবের আলগা ইউনিয়নের চর দুর্গাপুরে। এ ঘটনায় বিবাদমান দু’টি গ্রুপের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে চর দুর্গাপুর গ্রামের রাশিদুল ইসলামের স্ত্রী মোছাম্মদ মুন্নি আক্তারের (২৭) সাথে প্রথমে একই গ্রামের প্রতিবেশী ইউপি সদস্য নূর মোহাম্মদ মোল্লার স্ত্রী সুফিয়া বেগমের (৫৫) ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ইউপি সদস্য নূর মুহাম্মদ এর স্ত্রী সুফিয়া বেগম তার দুই পুত্র আব্দুস সবুর (২৫) ও শফিকুল ইসলামকে (২২) সাথে নিয়ে গৃহবধূ মুন্নি আক্তার এর বাড়িতে ঢুকে পড়ে এবং তিনজনে মিলে ঘরের ভিতর তাকে বেদম প্রহার করে তার শ্লীলতাহানি ঘটায়।
এসময় মুন্নি আক্তার মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সংজ্ঞা হারান। এ অবস্থায় ক্ষিপ্ত সুফিয়া বেগম তার ছেলেসহ চুলের মুঠি ধরে মুন্নীকে টেনে হ্যাচরে ঘরের বাহিরে আনার চেষ্টা করে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। বৃহস্পতিবার হাটের দিন হওয়ায় মুন্নি আক্তারের স্বামী ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলেন না।
বাসা ফাকা থাকার সুযোগে ইউপি সদস্যের দুই পুত্র স্টিলের বাক্স ভেঙে তার স্বামীর গরু বেচা কেনার ১২ লাখ ৭০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। খবর পেয়ে মুন্নীর স্বামী ও পিতা বাসায় এসে মুন্নীকে অসুস্থ অবস্থায় প্রথমে নৌকায় উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নে ঘাটে পৌঁছে।পরে অপরিচিত অটো রিকশা যোগে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ এর সাথে কথা হলে ঝগড়ার কথা স্বীকার করে বলেন, তার এক পুত্র শুধু দুইটি থাপ্পর দিয়েছে মুন্নিকে। ট্রাঙ্ক ভেঙ্গে টাকা নেয়ার ঘটনাটি মিথ্যা বলে তিনি দাবি করেন। এ ব্যাপারে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির জানান,এরকম অভিযোগ আসলে ব্যাবস্থা নেয়া হবে, এমন অভিযোগ পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে বলেন দেখতে হবে!।

নিউজবিজয়/এফএইচএন