এরশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি, যা বললেন বিদিশা

ঢাকা: জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন এরশাদকে অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছে।

আজ রবিবার (৩০ জুন) ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান জাপার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও এরশাদের ছোট ভাই জিএম কাদের।

রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন জিএম কাদের। তিনি বলেন, এরশাদের শারীরিক অবস্থা গত শনিবারের চেয়ে আজ অবনতি ঘটলে তাঁকে অক্সিজেন সাপোর্টে দেওয়া হয়।

এদিকে এরশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি নিয়ে হৃদয়বিদারক একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তার সাবেক স্ত্রী বিদিশা এরশাদ। আজ রবিবার (৩০ জুন) রাত ৮টা ৩২ মিনিটে তার ফেসবুক পেজে এ স্ট্যাটাস দিয়েছেন। বিডি২৪লাইভের পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধারা হলো-

“এই নির্মমতার শেষ কোথায় ?

স্ত্রী দেখতে পারছেনা তার স্বামীকে, সন্তান দেখতে পাচ্ছ না তার পিতা কে, এরকম এক নির্মমতার মধ্যে দিয়ে অতিবাহিত করতে হচ্ছে আমার দিনগুলো। সবসময়ই বুকের ভেতরটা কেঁপে উঠছে এই বুঝি কোন দুঃসংবাদ শুনি, আর কারো কথা বলছিনা আমি সাবেক রাষ্ট্রপতি হোসেন মোহাম্মদ এরশাদ সাহেবের কথা বলছি।

তিনি এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছেন। অথচ তাকে নিয়ে চলছে রাজনীতি, কেউ বা চায় তার পদ দখল করতে, কেউ বা তার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি।

কি নির্দয় এ সমাজের মানুষগুলো ? যাদের জন্য জীবনে এত কিছু করে গেলেন তিনি, তারাই আজ তার মৃত্যু কামনা করছেন। বাবার মৃত্যু ক্ষণে ছেলেকে সুকৌশলে দূরে রাখা হচ্ছে, কেউ কেউ তাকে নিয়ে নতুন স্বপ্ন দেখাও শুরু করেছেন।

আমি অতো সাত, পাঁচ বুঝিনা,আর এগুলো বুঝতে চাইও না, আমি চাই আমার ছেলেটা সুন্দরভাবে বেড়ে উঠুক, বাবার স্বপ্ন পূরণে সেও এক সময় দেশ ও জাতির জন্য কাজ করবে, কিন্তু আমার ভয় হচ্ছে আমার ছেলেকে নিয়ে, ও যেন আমার মত কোনো ষড়যন্ত্রের শিকার না হয়। তাই আমি এরশাদের গড়া জাতীয় পার্টির সকল নেতা কর্মীদের অনুরোধ করবো, আপনাদের নেতার এই দুঃসময়ে তার পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ান সত্য উদঘাটন করুন, ষড়যন্ত্র হাত থেকে এরিকে বাঁচান।

জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে কি এরিক তার বাবাকে দেখতেও পারবে না ? পারবে না কি শেষবারের মতো একবার বাবা বলে ডাকতে ? এই প্রশ্ন জাতীয় পার্টির প্রতিটি নেতাকর্মীর কাছে আমার রইল, পাশাপাশি ওনার সুস্থতার জন্য সকলকে দোয়া করার অনুরোধ রইলো।

বিদিশা।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.