ঢাকা ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

newsbijoy24.com

রংপুরের

কাউনিয়ায় তিন শিশু চারদিন ধরে নিখোঁজ

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

রংপুরের কাউনিয়ায় তিন পরিবারের তিন শিশু চার দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে। গত শনিবার উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের মীরবাগ বাজার এলাকায় স্কুল মাঠে খেলা দেখতে এসে তারা নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় সোমবার শিশুদের পরিবারের লোকজন কাউনিয়া থানায় পৃথক পৃথক সাধারণ ডায়রি (জিডি নং-৫৪, ৫৫ ও ৫৬) করেছেন। তবে পুলিশের ধারণা, শিশুরা তাদের বাবা মায়ের সাথে অভিমান করে অন্য কোথায় চলে গেছে।
জিডি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের নুর আলমের ছেলে ধর্মেশ্বর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাজেদুল ইসলাম (১১), একই গ্রামের শফিকুল ইসলাম ছাইমুদ্দিনের ছেলে মনিরুল ইসলাম (১০) ও গদাধর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে স্থানীয় মাদ্রাসার ছাত্র আব্দুল্লাহ আল পলাশ (১৩) তারা তিন বন্ধু। গত ৩০ জুলাই শনিবার বিকেলে তিন শিশু বাড়ী থেকে বের হয়ে মীরবাগ বাজারের পাশে স্থানীয় স্কুল মাঠে খেলা দেখতে এসে নিখোঁজ হয়। বিকেল গড়িয়ে রাত হলে তারা বাড় ফিরে না আসলে তিন শিশুর পরিবারের সদস্যরা আশপাশের লোকজনকে জানালে সবাই খোাঁজাখুঁজি করেও শিশুদের কোথাও খুঁজে পাননি। পরে সোমবার রাতে তিন শিশুর পিতারা বাদী হয়ে হারিয়ে যাওয়া শিশুদের বর্ণনা উল্লেখ করে কাউনিয়া থানায় জিডি করেন।
গদাধর গ্রামের মোশারফ হোসেন বলেন, শনিবার সকালে ছেলের বরে তার জ্বর লাগছে। ওষুধ সেবন করা নিয়ে তিনি ছেলের সাথে রাগারাগি করেছিলেন। ছেলেটা বিকেলে বাড়ী থেকে বেরিয়ে যায়। চার দিন ধরে অনেক স্থানে খোঁজাখুজির পরও ছেলেটার কোথাও সন্ধান পাচ্ছি না।
শ্যামপুর গ্রামের নুর আলম বলেন,শনিবার স্কুলে যেতে না চাইলে তিনি ছেলেকে বখা দেন। এরপর সে স্কুলে যায়। স্কুল থেকে ফিরে এসে বিকেলে সাজেদুল দুই শিশু বন্ধু মনিরুল ও পলাশের সাথে স্থানীয় মাঠে দেখতে যায়। চারদিন ধরে তার ছেলে সহ আরো দুই শিশু নিখোঁজ রয়েছে।
শফিকুল ইসলাম বলেন, আগে বাচ্চারা একাই বাড়ী থেকে অন্য কোথাও যায়নি। আমরা অনেক জায়গায় খোঁজ নিয়েছি। এখন পর্যন্ত তাদের কোনো সন্ধান পাইনি।
কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ জানান, রবিবার রাতে নিখোঁজ তিন শিশুর অভিভাবকরা থানায় এসে এ ব্যাপারে সাধারণ ডায়রি করেছেন। তিনি বলেন, পরিবারের সদস্যদের ভাষ্য মতে তিন শিশু এক সঙ্গে ঘুরাফেরা করতো। হয়তো পরিবারের সাথে অভিমান করে তাদেরকে না জানিয়ে তারা অন্য কোথাও গিয়েছে।
ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, তিন শিশুর নিখোঁজ বার্তা দেশের সকল থানায় পাঠানো হয়েছে এবং তাদের সন্ধানে কাজ করছে পুুলিশ।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

Nagad-Fifa-WorldCup

শনিবার বিএনপি’র ১০ দফায় যা থাকছে

রংপুরের

কাউনিয়ায় তিন শিশু চারদিন ধরে নিখোঁজ

প্রকাশিত সময়: ০৫:২২:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ অগাস্ট ২০২২

রংপুরের কাউনিয়ায় তিন পরিবারের তিন শিশু চার দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে। গত শনিবার উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের মীরবাগ বাজার এলাকায় স্কুল মাঠে খেলা দেখতে এসে তারা নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় সোমবার শিশুদের পরিবারের লোকজন কাউনিয়া থানায় পৃথক পৃথক সাধারণ ডায়রি (জিডি নং-৫৪, ৫৫ ও ৫৬) করেছেন। তবে পুলিশের ধারণা, শিশুরা তাদের বাবা মায়ের সাথে অভিমান করে অন্য কোথায় চলে গেছে।
জিডি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের নুর আলমের ছেলে ধর্মেশ্বর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাজেদুল ইসলাম (১১), একই গ্রামের শফিকুল ইসলাম ছাইমুদ্দিনের ছেলে মনিরুল ইসলাম (১০) ও গদাধর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে স্থানীয় মাদ্রাসার ছাত্র আব্দুল্লাহ আল পলাশ (১৩) তারা তিন বন্ধু। গত ৩০ জুলাই শনিবার বিকেলে তিন শিশু বাড়ী থেকে বের হয়ে মীরবাগ বাজারের পাশে স্থানীয় স্কুল মাঠে খেলা দেখতে এসে নিখোঁজ হয়। বিকেল গড়িয়ে রাত হলে তারা বাড় ফিরে না আসলে তিন শিশুর পরিবারের সদস্যরা আশপাশের লোকজনকে জানালে সবাই খোাঁজাখুঁজি করেও শিশুদের কোথাও খুঁজে পাননি। পরে সোমবার রাতে তিন শিশুর পিতারা বাদী হয়ে হারিয়ে যাওয়া শিশুদের বর্ণনা উল্লেখ করে কাউনিয়া থানায় জিডি করেন।
গদাধর গ্রামের মোশারফ হোসেন বলেন, শনিবার সকালে ছেলের বরে তার জ্বর লাগছে। ওষুধ সেবন করা নিয়ে তিনি ছেলের সাথে রাগারাগি করেছিলেন। ছেলেটা বিকেলে বাড়ী থেকে বেরিয়ে যায়। চার দিন ধরে অনেক স্থানে খোঁজাখুজির পরও ছেলেটার কোথাও সন্ধান পাচ্ছি না।
শ্যামপুর গ্রামের নুর আলম বলেন,শনিবার স্কুলে যেতে না চাইলে তিনি ছেলেকে বখা দেন। এরপর সে স্কুলে যায়। স্কুল থেকে ফিরে এসে বিকেলে সাজেদুল দুই শিশু বন্ধু মনিরুল ও পলাশের সাথে স্থানীয় মাঠে দেখতে যায়। চারদিন ধরে তার ছেলে সহ আরো দুই শিশু নিখোঁজ রয়েছে।
শফিকুল ইসলাম বলেন, আগে বাচ্চারা একাই বাড়ী থেকে অন্য কোথাও যায়নি। আমরা অনেক জায়গায় খোঁজ নিয়েছি। এখন পর্যন্ত তাদের কোনো সন্ধান পাইনি।
কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ জানান, রবিবার রাতে নিখোঁজ তিন শিশুর অভিভাবকরা থানায় এসে এ ব্যাপারে সাধারণ ডায়রি করেছেন। তিনি বলেন, পরিবারের সদস্যদের ভাষ্য মতে তিন শিশু এক সঙ্গে ঘুরাফেরা করতো। হয়তো পরিবারের সাথে অভিমান করে তাদেরকে না জানিয়ে তারা অন্য কোথাও গিয়েছে।
ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, তিন শিশুর নিখোঁজ বার্তা দেশের সকল থানায় পাঠানো হয়েছে এবং তাদের সন্ধানে কাজ করছে পুুলিশ।

নিউজবিজয়/এফএইচএন