ঢাকা ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়া পলাতক

ছাতকে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি আপন ভাই আলী হোসেন গ্রেফতার

সুনামগঞ্জের ছাতকে বারকি শ্রমিক আবুল হোসেন চা ল্যকর হত্যাকান্ডের ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার আবুল হোসেন এর ভাই আলী হোসেনকে গ্রেফতার করে সুনামগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার আবুল হোসেন এর স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগমকে গ্রেফতার করে সুনামগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, আবুল হোসেনকে হত্যার পর তার ভাই আলী হোসেন, তার স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম ও স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়াসহ কয়েকজন মিলে তার লাশ রোয়া বিলের পাশে একটি বন রকম স্থানে ফেলে রাখা হয়। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মোছা: সবতুন বেগম।

জানা যায়, উপজেলা ইসলামপুর ইউনিয়নের সৈদাবাদ গ্রামের মৃত. আব্দুল মনাফের ছেলে আবুল হোসেন শুক্রবার (২১ অক্টোবর) নিজ বাড়ী থেকে নিখোঁজ হন। পর দিন সকাল ৮ ঘটিকা পর্যন্ত আবুল হোসেন বাড়ীতে ফিরে না আসায় তার স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম ও ভাই আলী হোসেনসহ আত্মীয় স্বজন সম্ভাব্য সকল জায়গায় খোঁজা খোঁজি করে আবুল হোসেনকে পাওয়া যায়নি। ২৭ অক্টোবর আবুল হোসেন এর ভাই আলী হোসেন থানায় জিডি নং-১৪৯৯ দায়ের করা হয়।

২ নভেম্বর মোছা: সবতুন বেগম বাদী হয়ে তার স্বামী মো. আবুল হোসেনকে অপহরণ করে খুন ও লাশ গুম করার অভিযোগ এনে আমল গ্রহনকারী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, ছাতক, সুনামগঞ্জে সি আর মামলা নং ৪৮৮/২০২২ ইং দায়ের করা হয়। এতে একই গ্রামের ইন্তাজ আলীর ছেলে শুকুর আলী, মন্তাজনগর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে মনির উদ্দিন, সফিক উদ্দিনসহ ৬ জন ও অজ্ঞাতমা আরো ৫/৬ জন আসামী করা হয়। নভেম্বর ছাতক থানায় মামলা নং-০৪ এফআইআর করা হয়। আবুল হোসেন নিখোঁজ হওয়ার ২৪ দিন পরম মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) স্থানীয় রোয় বিলের পাশে বন রকম স্থান থেকে একটি কষ্কাল উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ মর্গে প্রেরন করে থানা পুলিশ। অপরদিকে দায়েরী মামলার সকল আসামীরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনপ্রাপ্ত হন।

হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত কার্যক্রম অব্যাহত রাখেন। গত ২২ নভেম্বর স্থানীয় দৈনিক ‘সুনামগঞ্জ প্রতিদিন’ অনলাইন সংবাদ মাধ্যম দখিনের ক্রাইম, কিশোরগঞ্জ প্রতিদিন, রূপালী বার্তা, নিউজ বাংলায় “ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ ? প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদে প্রাপ্ত তথ্য উপাথ্যর ভিত্তিতে মামলার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। অবশেষে আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম, ভাই আলী হোসেনের ও স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়ার মুখোশ উম্মোচন করে পুলিশ। তবে পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়া পলাতক রয়েছে।

এ বিষয়ে ছাতক থানার ওসি মাহবুবুর রহমান গ্রেফতার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy24

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ

Nagad-Fifa-WorldCup

ইতিহাসের এই দিনে: ৩১ জানুয়ারি-২০২৩

google.com, pub-9120502827902997, DIRECT, f08c47fec0942fa0

পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়া পলাতক

ছাতকে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি আপন ভাই আলী হোসেন গ্রেফতার

প্রকাশিত সময়: ০১:২১:০৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২২

সুনামগঞ্জের ছাতকে বারকি শ্রমিক আবুল হোসেন চা ল্যকর হত্যাকান্ডের ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার আবুল হোসেন এর ভাই আলী হোসেনকে গ্রেফতার করে সুনামগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার আবুল হোসেন এর স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগমকে গ্রেফতার করে সুনামগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, আবুল হোসেনকে হত্যার পর তার ভাই আলী হোসেন, তার স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম ও স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়াসহ কয়েকজন মিলে তার লাশ রোয়া বিলের পাশে একটি বন রকম স্থানে ফেলে রাখা হয়। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মোছা: সবতুন বেগম।

জানা যায়, উপজেলা ইসলামপুর ইউনিয়নের সৈদাবাদ গ্রামের মৃত. আব্দুল মনাফের ছেলে আবুল হোসেন শুক্রবার (২১ অক্টোবর) নিজ বাড়ী থেকে নিখোঁজ হন। পর দিন সকাল ৮ ঘটিকা পর্যন্ত আবুল হোসেন বাড়ীতে ফিরে না আসায় তার স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম ও ভাই আলী হোসেনসহ আত্মীয় স্বজন সম্ভাব্য সকল জায়গায় খোঁজা খোঁজি করে আবুল হোসেনকে পাওয়া যায়নি। ২৭ অক্টোবর আবুল হোসেন এর ভাই আলী হোসেন থানায় জিডি নং-১৪৯৯ দায়ের করা হয়।

২ নভেম্বর মোছা: সবতুন বেগম বাদী হয়ে তার স্বামী মো. আবুল হোসেনকে অপহরণ করে খুন ও লাশ গুম করার অভিযোগ এনে আমল গ্রহনকারী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, ছাতক, সুনামগঞ্জে সি আর মামলা নং ৪৮৮/২০২২ ইং দায়ের করা হয়। এতে একই গ্রামের ইন্তাজ আলীর ছেলে শুকুর আলী, মন্তাজনগর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে মনির উদ্দিন, সফিক উদ্দিনসহ ৬ জন ও অজ্ঞাতমা আরো ৫/৬ জন আসামী করা হয়। নভেম্বর ছাতক থানায় মামলা নং-০৪ এফআইআর করা হয়। আবুল হোসেন নিখোঁজ হওয়ার ২৪ দিন পরম মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) স্থানীয় রোয় বিলের পাশে বন রকম স্থান থেকে একটি কষ্কাল উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ মর্গে প্রেরন করে থানা পুলিশ। অপরদিকে দায়েরী মামলার সকল আসামীরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনপ্রাপ্ত হন।

হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত কার্যক্রম অব্যাহত রাখেন। গত ২২ নভেম্বর স্থানীয় দৈনিক ‘সুনামগঞ্জ প্রতিদিন’ অনলাইন সংবাদ মাধ্যম দখিনের ক্রাইম, কিশোরগঞ্জ প্রতিদিন, রূপালী বার্তা, নিউজ বাংলায় “ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ ? প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদে প্রাপ্ত তথ্য উপাথ্যর ভিত্তিতে মামলার রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। অবশেষে আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম, ভাই আলী হোসেনের ও স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়ার মুখোশ উম্মোচন করে পুলিশ। তবে পরকীয়া প্রেমিক সাবুল মিয়া পলাতক রয়েছে।

এ বিষয়ে ছাতক থানার ওসি মাহবুবুর রহমান গ্রেফতার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছা: সবতুন বেগম আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন