ঢাকা ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

newsbijoy24.com

ঝুলন্ত বাবা-মায়ের লাশের পাশে কাঁদছিল শিশুটি

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

সিলেট নগরীর পাঠানটুলা এলাকা থেকে এক দম্পতির ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার বেলা ১১টার দিকে দুটি কক্ষ থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধারের সময় মায়ের পাশে বসে কান্নারত অবস্থায় শিশুপুত্রকেও উদ্ধার করা হয়।

ওই দুজন হলেন- রিপন তালুকদার ও শিপ্রা তালুকদার, যাদের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে। রিপন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পাঠানটুলা এলাকার একটি বাসায় একমাত্র সন্তান ঋত্বিক তালুকদারকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন রিপন ও শিপ্রা। রবিবার সকালে ঘর থেকে ঋত্বিকের কান্নার শব্দ শুনে প্রতিবেশীরা ডাকাডাকি করেন, তবে অনেকক্ষণ ডাকাডাকির পরও ভেতর থেকে দরজা না খোলায় তারা পুলিশকে খবর দেন। পরে বেলা ১১টার দিকে পুলিশ ঝুলন্ত অবস্থায় দম্পতির মরদেহ উদ্ধার করে।

এদিকে বাসার ভেতর থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করেছে পুলিশ। এতে লেখা ছিল,‌‘আমার পাপের প্রায়শ্চিত্ত করেছি, তোমরা আমার সন্তানকে খেয়াল রেখো।’ চিরকুটটি কার লেখা, তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ বলেন, গত রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। সকাল ৯টার দিকে ঘরের ভেতর থেকে শিশুর কান্না শুনতে পাওয়া যায়। পারিবারিক কলহের কারণেই ঘটনাটি ঘটেছে বলে ধারণা করছি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

অবশেষে ব্রাজিলকে কাঁদিয়ে সেমিতে ক্রোয়েশিয়া

ঝুলন্ত বাবা-মায়ের লাশের পাশে কাঁদছিল শিশুটি

প্রকাশিত সময়: ০৭:১২:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ নভেম্বর ২০২২

সিলেট নগরীর পাঠানটুলা এলাকা থেকে এক দম্পতির ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার বেলা ১১টার দিকে দুটি কক্ষ থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধারের সময় মায়ের পাশে বসে কান্নারত অবস্থায় শিশুপুত্রকেও উদ্ধার করা হয়।

ওই দুজন হলেন- রিপন তালুকদার ও শিপ্রা তালুকদার, যাদের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে। রিপন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পাঠানটুলা এলাকার একটি বাসায় একমাত্র সন্তান ঋত্বিক তালুকদারকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন রিপন ও শিপ্রা। রবিবার সকালে ঘর থেকে ঋত্বিকের কান্নার শব্দ শুনে প্রতিবেশীরা ডাকাডাকি করেন, তবে অনেকক্ষণ ডাকাডাকির পরও ভেতর থেকে দরজা না খোলায় তারা পুলিশকে খবর দেন। পরে বেলা ১১টার দিকে পুলিশ ঝুলন্ত অবস্থায় দম্পতির মরদেহ উদ্ধার করে।

এদিকে বাসার ভেতর থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করেছে পুলিশ। এতে লেখা ছিল,‌‘আমার পাপের প্রায়শ্চিত্ত করেছি, তোমরা আমার সন্তানকে খেয়াল রেখো।’ চিরকুটটি কার লেখা, তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ বলেন, গত রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। সকাল ৯টার দিকে ঘরের ভেতর থেকে শিশুর কান্না শুনতে পাওয়া যায়। পারিবারিক কলহের কারণেই ঘটনাটি ঘটেছে বলে ধারণা করছি।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন