ঢাবিতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ

বিজয় ডেস্ক: গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন ছয়জন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মধুর ক্যান্টিন থেকে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বের হন। এ সময় ছাত্রলীগের আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাগর হোসেন, মিশু, মিশকাতসহ ১৫ থেকে ২০ জন নেতাকর্মী তাঁর কাছে সম্মেলন নিয়ে কথা বলতে যান। সোহাগ তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাননি। এতে তারা সোহাগের দিকে তেড়ে যায় এবং বিভিন্ন ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় পাশে থাকা সোহাগের অর্ধশতাধিক সমর্থক তাদের বের করে দেওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে তাদের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে সাগর হোসেন, মিশু, মিশকাত, আল আমিনসহ ছয়জন আহত হন। আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ‘আমরা সোহাগের কাছে ক্যাম্পাসের অস্থিতিশীলতার বিষয়ে জানতে চেয়েছিলাম। আমরা তাঁকে বলি যে, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কোটা সংস্কার নিয়ে পোস্ট দিচ্ছে, আপনি নিশ্চুপ কেন? তারেক রহমান (বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন) আপনাকে কত টাকা দিয়েছে? বললে সোহাগ আমার দিকে তেড়ে আসে। পরে তার নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের ছয়জনের মতো আহত হয়।’

এই ঘটনার পর থেকে ক্যাম্পাসে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিভিন্ন হল থেকে সোহাগের পাঁচ শতাধিক সমর্থক বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে মধুর ক্যান্টিনে আসে। এ সময় তারা ‘সোহাগের কিছু হলে, জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে’ বলে স্লোগান দিতে থাকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, ‘কিছু বহিষ্কৃত ও সাবেক নেতা এসেছিল, যারা মার্ডার মামলার আসামি। তারা ঝামেলা নিয়ে এসেছিল। আমি তাদের ঝামেলা মিটিয়ে দেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Right Menu Icon