ঢাকা ১২:০৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পীরগাছায় ভাইকে ভিটে ছাড়া করতে কয়েক দফা হামলা-৩ লক্ষাধিক টাকা লুট: আহত-৩

রংপুরের পীরগাছায় চলাচলের রাস্তার থাকার পরও নতুন রাস্তার জায়গা ছেড়ে না দেওয়ায় ৪ ভাই মিলে ছেলে সন্তানহীন অটো চালক এক ভাইকে ভিটে ছাড়া করতে মেয়ে-জামাই ও তাকে বেদম মারপিট করার অভিযোগ উঠছে। বিভিন্ন প্রজাতির ফল গাছ কাটতে বাঁধা দেওয়ায় গত মঙ্গলবার বিকেলে ও রাতে কয়েক দফা হামলা চালানো হয়েছে ওই অটো চালকের বাড়িতে। জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ ফোন পেয়ে পীরগাছা থানা পুলিশ আহত অটো চালক, তার মেয়ে-জামাতাকে উদ্ধার করে পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর আরেক দফা চলে হামলা-ভাংচুর ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এ ব্যাপারে গতকাল বুধবার ১০ জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন আহত অটো চালক জাহাঙ্গীর আলম।
অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের ধাপগাছ গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলের জাহাঙ্গীর আলম (৪৭) এর সাথে তার অপর ৪ ভাই আব্দুল জলিল, জাহেদুল ইসলাম, জয়নাল আবেদীনের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে দ্বন্দ চলে আসছিলো। সবার চলাচলের জন্য রাস্তা থাকার পরও ব্যক্তিগত ভাবে নতুন রাস্তার জন্য গত মঙ্গলবার বিকেলে ভাই, ভাতিজারা মিলে জাহাঙ্গীর আলমের বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ কাটতে থাকে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে তারা জাহাঙ্গীর আলম (৪৭), তার মেয়ে বিলকিছ বেগম (২২) ও মেয়ে জামাতা আয়নাল হক (৩৪)কে বেদম মারপিট করে হত্যার চেষ্টা চালায় এবং গাছগুলো কেটে নিয়ে যায়। ঘন্টা ব্যাপী চলা কয়েক দফা হামলার ঘটনায় এলাকাবাসী ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে পীরগাছা থানার পুলিশ তাদের উদ্ধার করে পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পুলিশ আসার অযুহাতে ওই বাড়িতে রাতে আরেক দফা চালানো হয় হামলা-ভাংচুর ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এসময় জাহাঙ্গীর আলমের অসুস্থ্য স্ত্রী ও এক মেয়ে ঘরের কোনে লুকিয়ে থাকে। হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে বেড়া কেটে ঘর থেকে ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও হামলার সময় জামাতার নিকট থেকে ব্যবসার ৮০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। কেটে ফেলা হয় প্রায় ১৫ হাজার টাকার ১৩টি ফল গাছ।
হাসপাতালে ভর্তি অটো চালক জাহাঙ্গী আলম বলেন, আমার ভাই-ভাতিজারা আমাকে উচ্ছেদের জন্য দীর্ঘদিন থেকে আমার ক্ষতি করে আসছে। এর আগেও তারা রাতের বেলা বাড়িতে ঢিল ছোড়া, নলকূপে বিষ প্রয়োগে হত্যার চেষ্টা করেছিল। নতুন করে গাছ কাটতে বাঁধা দেওয়ায় আমার গলা চেপে ও মারপিট করে হত্যার চেষ্টা করেছে। আমি প্রশাসনের নিকট আমার পরিবারের নিরাপত্তা চাই। এ জন্য থানায় অভিযোগ দিয়েছি।
জাহাঙ্গীর আলমের অপর ভাইদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, রাস্তার জন্য জায়গা ছেড়ে দিতে বললেও না দেওয়ায় গাছ কাটতে গিয়ে সামান্য ঝামেলা হয়েছে।
এ বিষয়ে পীরগাছা থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) এনামুল হক বলেন, আমরা ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে তিনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এসময় হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বাদির অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy24

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ
google.com, pub-9120502827902997, DIRECT, f08c47fec0942fa0

পীরগাছায় ভাইকে ভিটে ছাড়া করতে কয়েক দফা হামলা-৩ লক্ষাধিক টাকা লুট: আহত-৩

প্রকাশিত সময়: ০৬:৪২:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ মে ২০২২

রংপুরের পীরগাছায় চলাচলের রাস্তার থাকার পরও নতুন রাস্তার জায়গা ছেড়ে না দেওয়ায় ৪ ভাই মিলে ছেলে সন্তানহীন অটো চালক এক ভাইকে ভিটে ছাড়া করতে মেয়ে-জামাই ও তাকে বেদম মারপিট করার অভিযোগ উঠছে। বিভিন্ন প্রজাতির ফল গাছ কাটতে বাঁধা দেওয়ায় গত মঙ্গলবার বিকেলে ও রাতে কয়েক দফা হামলা চালানো হয়েছে ওই অটো চালকের বাড়িতে। জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ ফোন পেয়ে পীরগাছা থানা পুলিশ আহত অটো চালক, তার মেয়ে-জামাতাকে উদ্ধার করে পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর আরেক দফা চলে হামলা-ভাংচুর ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এ ব্যাপারে গতকাল বুধবার ১০ জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন আহত অটো চালক জাহাঙ্গীর আলম।
অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের ধাপগাছ গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলের জাহাঙ্গীর আলম (৪৭) এর সাথে তার অপর ৪ ভাই আব্দুল জলিল, জাহেদুল ইসলাম, জয়নাল আবেদীনের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে দ্বন্দ চলে আসছিলো। সবার চলাচলের জন্য রাস্তা থাকার পরও ব্যক্তিগত ভাবে নতুন রাস্তার জন্য গত মঙ্গলবার বিকেলে ভাই, ভাতিজারা মিলে জাহাঙ্গীর আলমের বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ কাটতে থাকে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে তারা জাহাঙ্গীর আলম (৪৭), তার মেয়ে বিলকিছ বেগম (২২) ও মেয়ে জামাতা আয়নাল হক (৩৪)কে বেদম মারপিট করে হত্যার চেষ্টা চালায় এবং গাছগুলো কেটে নিয়ে যায়। ঘন্টা ব্যাপী চলা কয়েক দফা হামলার ঘটনায় এলাকাবাসী ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে পীরগাছা থানার পুলিশ তাদের উদ্ধার করে পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পুলিশ আসার অযুহাতে ওই বাড়িতে রাতে আরেক দফা চালানো হয় হামলা-ভাংচুর ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এসময় জাহাঙ্গীর আলমের অসুস্থ্য স্ত্রী ও এক মেয়ে ঘরের কোনে লুকিয়ে থাকে। হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে বেড়া কেটে ঘর থেকে ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও হামলার সময় জামাতার নিকট থেকে ব্যবসার ৮০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। কেটে ফেলা হয় প্রায় ১৫ হাজার টাকার ১৩টি ফল গাছ।
হাসপাতালে ভর্তি অটো চালক জাহাঙ্গী আলম বলেন, আমার ভাই-ভাতিজারা আমাকে উচ্ছেদের জন্য দীর্ঘদিন থেকে আমার ক্ষতি করে আসছে। এর আগেও তারা রাতের বেলা বাড়িতে ঢিল ছোড়া, নলকূপে বিষ প্রয়োগে হত্যার চেষ্টা করেছিল। নতুন করে গাছ কাটতে বাঁধা দেওয়ায় আমার গলা চেপে ও মারপিট করে হত্যার চেষ্টা করেছে। আমি প্রশাসনের নিকট আমার পরিবারের নিরাপত্তা চাই। এ জন্য থানায় অভিযোগ দিয়েছি।
জাহাঙ্গীর আলমের অপর ভাইদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, রাস্তার জন্য জায়গা ছেড়ে দিতে বললেও না দেওয়ায় গাছ কাটতে গিয়ে সামান্য ঝামেলা হয়েছে।
এ বিষয়ে পীরগাছা থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) এনামুল হক বলেন, আমরা ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে তিনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এসময় হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বাদির অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।