ঢাকা ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

newsbijoy24.com

পীরগাছায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন: হাসপাতালে ভর্তি

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

রংপুরের পীরগাছায় ২০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন অতপর তালাক দেওয়ার পরও কৌশলে ঘর সংসার করার অভিযোগ উঠছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তালাকের বিষয়টি জানার পর বেদম মারপিট করে মাথা ফাাঁটিয়ে দেয়া হয়েছে ওই গৃহবধুর। এমনকি আহত গৃহবধুকে হাসপাতলে নিতেও বাঁধা দেন স্বামীর বাড়ির লোকজন। বর্তমানে ওই গৃহবধু পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আর ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের আদম গ্রামে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
অভিযোগে জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের তাজ তালুক গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে লুৎফা জাহান নিলুফা (২২) এর সাথে বিগত ২০১৯ সালের ২১ জানুয়ারী আদম গ্রামের মোবারক আলীর ছেলে বিদেশ ফেরত আনোয়ারুল হকের বিয়ে হয়। বিয়ের পর আনোয়ারুল হক স্থানীয় পাওটানাহাটে ইসলামি ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং এর শাখা খোলার জন্য শ^শুর লুৎফর রহমানের নিকট থেকে ২০ লাখ টাকা যৌতুক নেন। কিছুদিন থেকে আরো ২০ লাখ টাকা যৌতুকের স্ত্রীকে চাপ দিতে থাকেন আনোয়ারুল হক। এতে স্ত্রী রাজি না হলে তার উপর চালানো হতো নির্যাতন। সম্প্রতি গোপনে স্ত্রীকে তালাক দিয়ে কৌশলে ঘর সংসার করতে থাকেন আনোয়ারুল হক। গত মঙ্গলবার রাতে আবারো স্ত্রীর নিকট ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। এতে স্ত্রী টাকা দিলে অস্বীকার করলে তাকে বেদম মারপিট করে মাথায় রক্তাক্ত জখম করে এবং অনেক আগেই তালাক দেওয়া হয়েছে বলে জানান। পরে আহত নিলুফাকে তার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে নিতে গেলে বাঁধা দেন স্বামী আনোয়ারুল হকের পরিবারের লোকজন।
মেয়েটির চাচা লাবলু মিয়া বলেন, অনেক আগেই তালাক দেওয়া হলেও এতোদিন কেন ঘর সংসার করলো! মেয়েটিকে এমন ভাবে মারপিট করা হয়েছে তার মাথায় ৪টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।
মেয়ের বাবা লুৎফর রহমান বলেন, মেয়েটিকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করলে আমরা খবর পেয়ে তাকে হাসপাতালে নিতে যাই। কিন্তু তারা আমাদের বাঁধা দেন এবং আমাদের উপর হামলা করেন। এ বিষয়ে আমি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
এ বিষয়ে জানতে আনোয়ারুল হকের মোবাইলে ফোন দেওয়া হলেও তিনি ধরেননি। তবে তার ভাই আরাফ সিদ্দিকী বলেন, ভাবিকে কেউ মারেনি। তারাই আমাদের মারপিট করেছে। আর ভাবিকে ২ অক্টোবর তারিখে ভাই তালাক দিয়েছে। ২ অক্টোবর তালাক দিলে ১১ তারিখেও মেয়েটি আপনাদের বাড়িতে কেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

কেন বিয়ে করছেন না ‘ভয়’ পাচ্ছেন নুসরাত ফারিয়া

পীরগাছায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন: হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত সময়: ১১:০০:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ অক্টোবর ২০২২

রংপুরের পীরগাছায় ২০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন অতপর তালাক দেওয়ার পরও কৌশলে ঘর সংসার করার অভিযোগ উঠছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তালাকের বিষয়টি জানার পর বেদম মারপিট করে মাথা ফাাঁটিয়ে দেয়া হয়েছে ওই গৃহবধুর। এমনকি আহত গৃহবধুকে হাসপাতলে নিতেও বাঁধা দেন স্বামীর বাড়ির লোকজন। বর্তমানে ওই গৃহবধু পীরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আর ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের আদম গ্রামে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
অভিযোগে জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের তাজ তালুক গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে লুৎফা জাহান নিলুফা (২২) এর সাথে বিগত ২০১৯ সালের ২১ জানুয়ারী আদম গ্রামের মোবারক আলীর ছেলে বিদেশ ফেরত আনোয়ারুল হকের বিয়ে হয়। বিয়ের পর আনোয়ারুল হক স্থানীয় পাওটানাহাটে ইসলামি ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং এর শাখা খোলার জন্য শ^শুর লুৎফর রহমানের নিকট থেকে ২০ লাখ টাকা যৌতুক নেন। কিছুদিন থেকে আরো ২০ লাখ টাকা যৌতুকের স্ত্রীকে চাপ দিতে থাকেন আনোয়ারুল হক। এতে স্ত্রী রাজি না হলে তার উপর চালানো হতো নির্যাতন। সম্প্রতি গোপনে স্ত্রীকে তালাক দিয়ে কৌশলে ঘর সংসার করতে থাকেন আনোয়ারুল হক। গত মঙ্গলবার রাতে আবারো স্ত্রীর নিকট ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। এতে স্ত্রী টাকা দিলে অস্বীকার করলে তাকে বেদম মারপিট করে মাথায় রক্তাক্ত জখম করে এবং অনেক আগেই তালাক দেওয়া হয়েছে বলে জানান। পরে আহত নিলুফাকে তার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে নিতে গেলে বাঁধা দেন স্বামী আনোয়ারুল হকের পরিবারের লোকজন।
মেয়েটির চাচা লাবলু মিয়া বলেন, অনেক আগেই তালাক দেওয়া হলেও এতোদিন কেন ঘর সংসার করলো! মেয়েটিকে এমন ভাবে মারপিট করা হয়েছে তার মাথায় ৪টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।
মেয়ের বাবা লুৎফর রহমান বলেন, মেয়েটিকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করলে আমরা খবর পেয়ে তাকে হাসপাতালে নিতে যাই। কিন্তু তারা আমাদের বাঁধা দেন এবং আমাদের উপর হামলা করেন। এ বিষয়ে আমি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
এ বিষয়ে জানতে আনোয়ারুল হকের মোবাইলে ফোন দেওয়া হলেও তিনি ধরেননি। তবে তার ভাই আরাফ সিদ্দিকী বলেন, ভাবিকে কেউ মারেনি। তারাই আমাদের মারপিট করেছে। আর ভাবিকে ২ অক্টোবর তারিখে ভাই তালাক দিয়েছে। ২ অক্টোবর তালাক দিলে ১১ তারিখেও মেয়েটি আপনাদের বাড়িতে কেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন উত্তর দেননি।