ঢাকা ০২:৪১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফুলকপি যাদের খাওয়া মানা!

শীতকালীন সবজি ফুলকপি খেতে কমবেশি সবাই ভালোবাসেন। ফুলকপি দিয়ে নানা ধরনের পদ তৈরি করা যায়। স্বাস্থ্যকর এই সবজি বিভিন্ন রোগের দাওয়াই হিসেবে কাজ করে।ওজন কমানো থেকে শুরু করে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যানসারসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। ফুলকপি হলো সরিষা পরিবারে সদস্য। ব্রোকলি, বাঁধাকপি ও ব্রাসেলস স্প্রাউট সবই এ পরিবারের অংশ। সাধারণত ক্রুসিফেরাস সবজি হিসেবে পরিচিত ফুলকপি। ইউএসডিএ’র তথ্যমতে, প্রায় ১০৭ গ্রাম ওজনের ১ কাপ কাটা কাঁচা ফুলকপিতে প্রায় ২৭ ক্যালোরি, ২ গ্রাম প্রোটিন, ৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ০.৩ গ্রাম ফ্যাট থাকে। এতে ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, ভিটামিন বি ৬, পটাসিয়াম, কোলিন ও ফোলেট সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিনও খনিজ রয়েছে। তবে ফুলকপি ডেকে আনতে পারে শারীরিক নানা সমস্যা। অতিরিক্ত ফুলকপি খাওয়া এড়িয়ে যাওয়া উচিত যারা নিম্নোক্ত সমস্যা ভুগছেন-
হজমের সমস্যায় ভুগলে
অতিরিক্ত পুলকপি খেলে হজমের সমস্যা হতে পারে। ক্রুসিফেরাস সবজি হজম করা কঠিন, বিশেষ করে যখন আধা সেদ্ধ বা অবস্থায় কাঁচা খাওয়া হয়।
গর্ভাবস্থায় ও বুকের দুধ খাওয়ালে
গর্ভাবস্থায় ও বুকের দুধ খাওয়ান যেসব নারীরা, তারাও চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ফুলকপি খাবেন না। কারণ এ সবজি কিছু কিছু ওষুধে পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।
রক্ত পাতলা করা ওষুধ খেলে
ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের মতে, ভিটামিন কে রক্ত পাতলা করার ওষুধের সঙ্গে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে। তাই আপনি যদি রক্ত পাতলা করা ওষুধ ব্যবহার করেন, তাহলে ফুলকপি খাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে
ফুলকপি খেলে অনেকেরই অ্যালার্জি হয়। এটিও ফুলকপির একটি সম্ভাব্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। ফুলকপিসহ বিভিন্ন ধরনের প্রোটিনযুক্ত সবজি ও ফলে অনেকের অ্যালার্জির সমস্যা হতে পারে।
মায়োক্লিনিকের তথ্য অনুসারে, কিছু শাক-সবজি ও ফলে অ্যালার্জি-সৃষ্টিকারী প্রোটিনই মূলত এ ধরনের অ্যালার্জির জন্য দায়ী।
এছাড়া ফুলকপি খাওয়ার পর অনেকেরই গন্ধযুক্ত ঢেঁকুর ওঠে। ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন ফর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ডিসঅর্ডার বলছে, শুধু ফুলকপি নয় মটরশুঁটি, গোটা শস্য, বাঁধাকপি, ব্রাসেলস স্প্রাউট, ব্রোকলি, অ্যাসপারাগাসসহ বিভিন্ন শাকসবজি খাওয়ার ফলে রাফিনোজ গ্যাস হতে পারে।
থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগলে
২০১৫ সালে ‘পুষ্টি ও ক্যানসারে’ প্রকাশিত একটি মেটা-বিশ্লেষণের তথ্য অনুসারে, ক্রুসিফেরাসযুক্ত শাক-সবজি অতিরিক্ত গ্রহণের ফলে থাইরয়েড ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়তে পারে।
গবেষণায় আরও জানানো হয়, ক্রুসিফেরাস সবজি ও আয়োডিনের প্রাপ্যতার উপর থাইরয়েড ক্যানসারের ঝুঁকি অনেকটাই বাড়ে।
তবে নিয়ম অনুযায়ী ও নির্দিষ্ট পরিমাণে খাওয়া হলে ফুলকপি স্বাস্থ্যের জন্য হতে পারে অনেক উপকারী। সপ্তাহে একদিন বা দু’দিন অল্প পরিমাণে এটি খেতে পারেন।
ফুলকপি বিভিন্ন উপায়ে খেতে পারেন। তবে আপনার যদি হজমের সমস্যা থাকে তাহলে রান্না করে তবেই ফুলকপি খাবেন। তবে পানি সেদ্ধ করবেন না, এতে ফুলকপিতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট নষ্ট হয়ে যায়।
সূত্র: লাইভস্ট্রং/টাইমস অব ইন্ডিয়া/ইট দিস, নট দ্যাট

মোঃ নজরুল ইসলাম/নিউজ বিজয়

 

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy24

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।
জনপ্রিয় সংবাদ

Nagad-Fifa-WorldCup

ইতিহাসের এই দিনে: ৩১ জানুয়ারি-২০২৩

google.com, pub-9120502827902997, DIRECT, f08c47fec0942fa0

ফুলকপি যাদের খাওয়া মানা!

প্রকাশিত সময়: ০৫:১৯:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

শীতকালীন সবজি ফুলকপি খেতে কমবেশি সবাই ভালোবাসেন। ফুলকপি দিয়ে নানা ধরনের পদ তৈরি করা যায়। স্বাস্থ্যকর এই সবজি বিভিন্ন রোগের দাওয়াই হিসেবে কাজ করে।ওজন কমানো থেকে শুরু করে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যানসারসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। ফুলকপি হলো সরিষা পরিবারে সদস্য। ব্রোকলি, বাঁধাকপি ও ব্রাসেলস স্প্রাউট সবই এ পরিবারের অংশ। সাধারণত ক্রুসিফেরাস সবজি হিসেবে পরিচিত ফুলকপি। ইউএসডিএ’র তথ্যমতে, প্রায় ১০৭ গ্রাম ওজনের ১ কাপ কাটা কাঁচা ফুলকপিতে প্রায় ২৭ ক্যালোরি, ২ গ্রাম প্রোটিন, ৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ০.৩ গ্রাম ফ্যাট থাকে। এতে ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, ভিটামিন বি ৬, পটাসিয়াম, কোলিন ও ফোলেট সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিনও খনিজ রয়েছে। তবে ফুলকপি ডেকে আনতে পারে শারীরিক নানা সমস্যা। অতিরিক্ত ফুলকপি খাওয়া এড়িয়ে যাওয়া উচিত যারা নিম্নোক্ত সমস্যা ভুগছেন-
হজমের সমস্যায় ভুগলে
অতিরিক্ত পুলকপি খেলে হজমের সমস্যা হতে পারে। ক্রুসিফেরাস সবজি হজম করা কঠিন, বিশেষ করে যখন আধা সেদ্ধ বা অবস্থায় কাঁচা খাওয়া হয়।
গর্ভাবস্থায় ও বুকের দুধ খাওয়ালে
গর্ভাবস্থায় ও বুকের দুধ খাওয়ান যেসব নারীরা, তারাও চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ফুলকপি খাবেন না। কারণ এ সবজি কিছু কিছু ওষুধে পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।
রক্ত পাতলা করা ওষুধ খেলে
ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের মতে, ভিটামিন কে রক্ত পাতলা করার ওষুধের সঙ্গে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে। তাই আপনি যদি রক্ত পাতলা করা ওষুধ ব্যবহার করেন, তাহলে ফুলকপি খাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে
ফুলকপি খেলে অনেকেরই অ্যালার্জি হয়। এটিও ফুলকপির একটি সম্ভাব্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। ফুলকপিসহ বিভিন্ন ধরনের প্রোটিনযুক্ত সবজি ও ফলে অনেকের অ্যালার্জির সমস্যা হতে পারে।
মায়োক্লিনিকের তথ্য অনুসারে, কিছু শাক-সবজি ও ফলে অ্যালার্জি-সৃষ্টিকারী প্রোটিনই মূলত এ ধরনের অ্যালার্জির জন্য দায়ী।
এছাড়া ফুলকপি খাওয়ার পর অনেকেরই গন্ধযুক্ত ঢেঁকুর ওঠে। ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন ফর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ডিসঅর্ডার বলছে, শুধু ফুলকপি নয় মটরশুঁটি, গোটা শস্য, বাঁধাকপি, ব্রাসেলস স্প্রাউট, ব্রোকলি, অ্যাসপারাগাসসহ বিভিন্ন শাকসবজি খাওয়ার ফলে রাফিনোজ গ্যাস হতে পারে।
থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগলে
২০১৫ সালে ‘পুষ্টি ও ক্যানসারে’ প্রকাশিত একটি মেটা-বিশ্লেষণের তথ্য অনুসারে, ক্রুসিফেরাসযুক্ত শাক-সবজি অতিরিক্ত গ্রহণের ফলে থাইরয়েড ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়তে পারে।
গবেষণায় আরও জানানো হয়, ক্রুসিফেরাস সবজি ও আয়োডিনের প্রাপ্যতার উপর থাইরয়েড ক্যানসারের ঝুঁকি অনেকটাই বাড়ে।
তবে নিয়ম অনুযায়ী ও নির্দিষ্ট পরিমাণে খাওয়া হলে ফুলকপি স্বাস্থ্যের জন্য হতে পারে অনেক উপকারী। সপ্তাহে একদিন বা দু’দিন অল্প পরিমাণে এটি খেতে পারেন।
ফুলকপি বিভিন্ন উপায়ে খেতে পারেন। তবে আপনার যদি হজমের সমস্যা থাকে তাহলে রান্না করে তবেই ফুলকপি খাবেন। তবে পানি সেদ্ধ করবেন না, এতে ফুলকপিতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট নষ্ট হয়ে যায়।
সূত্র: লাইভস্ট্রং/টাইমস অব ইন্ডিয়া/ইট দিস, নট দ্যাট

মোঃ নজরুল ইসলাম/নিউজ বিজয়