ঢাকা ০৫:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০২ এপ্রিল ২০২৩, ১৮ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মেট্রোরেল স্টেশনে এক নারীর সন্তান প্রসব

  • অনলাইন ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময়: ১২:৩৫:৫৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৩
  • 182

ডাক্তারের কাছে যাওযার সময় মেট্রোরেলে প্রসব বেদনা উঠে আগারগাঁও স্টেশনের ফার্স্ট এইড সেন্টারে ছেলে সন্তান প্রসব করেছেন এক নারী। তার নাম সোনিয়া রানী রায়।

মেট্রোরেলের ভেতর অসুস্থ হয়ে পড়লে রোভার স্কাউট ও মেট্রোরেলের প্রাথমিক প্রতিবিধানকারীর তত্ত্বাবধানে সন্তান প্রসব করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) সকাল পৌনে ৯টার দিকে আগারগাঁও স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে।

সোনিয়া রানী দাসের স্বামী সুকান্ত সাহা বলেন, আমার স্ত্রী সন্তানসম্ভবা হওয়ায় নিয়মিতই ডাক্তারের কাছে চেকআপ করাতে হত। আজ হাসপাতলে ভর্তি করানোর জন্য বাসা থেকে নিয়ে যাচ্ছিলাম। পরে মেট্রোরেলেই প্রসব বেদনা উঠে। সেসময় মেট্রোরেল স্টেশন কর্তৃপক্ষ এবং রোভার স্কাউটের নারী সদস্যদের সহযোগিতায় সেখানেই বাচ্চা প্রসব হয়। মা এবং ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন। এখন তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মেট্রোরেল স্টেশনে তাৎক্ষণিকভাবে সবাই দেবদূতের মতো সহযোগিতা করেছেন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে শেষ করতে পারবো না। সবাই তাৎক্ষণিকভাবে প্রচণ্ড রকম সহযোগিতা করেছেন। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষই আমাকে অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। সবার প্রতি আমি অনেক বেশি কৃতজ্ঞ।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএটিসিএল) নর্থ রোডের (লাইন-৫) এডিশনাল প্রজেক্ট ডিরেক্টর আনোয়ারুল হক বলেন, মেট্রোরেলেই ওই নারীর প্রসব বেদনা শুরু হলে আগারগাঁও স্টেশনে নামার পর আমাদের চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। সেখানে আমাদের সিক বেড রয়েছে। পরে চিকিৎসক এবং রোভার স্কাউটের নারী সদস্যের সহায়তায় তার ছেলে সন্তান প্রসব হয়। তাৎক্ষণিকভাবে ট্রিপল নাইনে ফোন করে অ্যাম্বুলেন্স এনে তাদের নির্ধারিত হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসলে যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি তাৎক্ষণিকভাবে মোকাবিলা করার জন্য আমাদের পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে।

আগারগাঁও স্টেশনে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালনরত রোভার স্কাউট লিডার নূর মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) পক্ষে কাস্টমার ফ্যাসিলেটর অ্যাসিস্ট্যান্ট (সিএফএ) হিসেবে সহযোগিতা করছেন রোভার স্কাউটের প্রশিক্ষিত সদস্যরা। বাংলাদেশ স্কাউটস রোভার অঞ্চল, নৌ অঞ্চল, এয়ার অঞ্চল এবং রেলওয়ে অঞ্চলের রোভার স্কাউট ও রোভার লিডারদের আগেই প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে। এসব প্রশিক্ষিত রোভার স্কাউট সদস্য মানুষের যাত্রা সহজীকরণে প্ল্যাটফর্মে সহযোগিতা করছেন। আজকেও যথারীতি সকালে কাজ শুরুর পর ওই মায়ের প্রসব বেদনা শুরু হলে নারী গার্ল ইন রোভার সদস্যের সহযোগিতায় প্রসব সম্পন্ন হয়েছে। আমরা সব সময় সেবার ব্রত নিয়ে কাজ করি। এই ধারাবাহিকতা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন।

NewsBijoy24

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

মেট্রোরেল স্টেশনে এক নারীর সন্তান প্রসব

প্রকাশিত সময়: ১২:৩৫:৫৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৩

ডাক্তারের কাছে যাওযার সময় মেট্রোরেলে প্রসব বেদনা উঠে আগারগাঁও স্টেশনের ফার্স্ট এইড সেন্টারে ছেলে সন্তান প্রসব করেছেন এক নারী। তার নাম সোনিয়া রানী রায়।

মেট্রোরেলের ভেতর অসুস্থ হয়ে পড়লে রোভার স্কাউট ও মেট্রোরেলের প্রাথমিক প্রতিবিধানকারীর তত্ত্বাবধানে সন্তান প্রসব করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) সকাল পৌনে ৯টার দিকে আগারগাঁও স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে।

সোনিয়া রানী দাসের স্বামী সুকান্ত সাহা বলেন, আমার স্ত্রী সন্তানসম্ভবা হওয়ায় নিয়মিতই ডাক্তারের কাছে চেকআপ করাতে হত। আজ হাসপাতলে ভর্তি করানোর জন্য বাসা থেকে নিয়ে যাচ্ছিলাম। পরে মেট্রোরেলেই প্রসব বেদনা উঠে। সেসময় মেট্রোরেল স্টেশন কর্তৃপক্ষ এবং রোভার স্কাউটের নারী সদস্যদের সহযোগিতায় সেখানেই বাচ্চা প্রসব হয়। মা এবং ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন। এখন তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মেট্রোরেল স্টেশনে তাৎক্ষণিকভাবে সবাই দেবদূতের মতো সহযোগিতা করেছেন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে শেষ করতে পারবো না। সবাই তাৎক্ষণিকভাবে প্রচণ্ড রকম সহযোগিতা করেছেন। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষই আমাকে অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। সবার প্রতি আমি অনেক বেশি কৃতজ্ঞ।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএটিসিএল) নর্থ রোডের (লাইন-৫) এডিশনাল প্রজেক্ট ডিরেক্টর আনোয়ারুল হক বলেন, মেট্রোরেলেই ওই নারীর প্রসব বেদনা শুরু হলে আগারগাঁও স্টেশনে নামার পর আমাদের চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। সেখানে আমাদের সিক বেড রয়েছে। পরে চিকিৎসক এবং রোভার স্কাউটের নারী সদস্যের সহায়তায় তার ছেলে সন্তান প্রসব হয়। তাৎক্ষণিকভাবে ট্রিপল নাইনে ফোন করে অ্যাম্বুলেন্স এনে তাদের নির্ধারিত হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসলে যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি তাৎক্ষণিকভাবে মোকাবিলা করার জন্য আমাদের পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে।

আগারগাঁও স্টেশনে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালনরত রোভার স্কাউট লিডার নূর মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) পক্ষে কাস্টমার ফ্যাসিলেটর অ্যাসিস্ট্যান্ট (সিএফএ) হিসেবে সহযোগিতা করছেন রোভার স্কাউটের প্রশিক্ষিত সদস্যরা। বাংলাদেশ স্কাউটস রোভার অঞ্চল, নৌ অঞ্চল, এয়ার অঞ্চল এবং রেলওয়ে অঞ্চলের রোভার স্কাউট ও রোভার লিডারদের আগেই প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে। এসব প্রশিক্ষিত রোভার স্কাউট সদস্য মানুষের যাত্রা সহজীকরণে প্ল্যাটফর্মে সহযোগিতা করছেন। আজকেও যথারীতি সকালে কাজ শুরুর পর ওই মায়ের প্রসব বেদনা শুরু হলে নারী গার্ল ইন রোভার সদস্যের সহযোগিতায় প্রসব সম্পন্ন হয়েছে। আমরা সব সময় সেবার ব্রত নিয়ে কাজ করি। এই ধারাবাহিকতা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন