রাতে শোওয়ার আগে এক গ্লাস গরম পানি খেলেই ম্যাজিক

বিজয় ডেস্ক: পানি অনেকেই কমবেশি পরিমাণে খান৷ কিন্তু জানেন কী রাতে শোওয়ার আগে এক গ্লাস ঈষদুষ্ণ জল শরীর সুস্থ রাখতে খুব প্রয়োজন? আমরা অনেকেই এই ছোট্ট টোটকার কথা জানি না৷

ওজন কমায় গরম পানি: গরম পানি শরীরের বিপাক ক্রিয়া খুব ভালভাবে সম্পন্ন করে। যার ফলে বাড়তি মেদ কমবে। তবে আরো বেশি কাজ দেবে যদি সকালে খালি পেটে গরম পানির সাথে লেবু মিশিয়ে পান করেন। এটা বডি ফ্যাট ভাঙতে সাহায্য করবে।

ঠাণ্ডা লাগা সারায়: ঠাণ্ডা লাগা, কফ জমে যাওয়া এবং গলা ব্যাথায় গরম পানির খুব কার্যকর ভূমিকা রাখে। এটা কফ তরল করে বের করে দেয়। গলা ব্যথা কমায়। এছাড়া নাসারন্দ্রের পথ পরিষ্কার রাখে।

মাসিক বাধা দূর করে: গরম জল মেয়েদের মাসিকের সমস্যা দূর করতে ভূমিকা রাখে। এটা পেটের পেশীকে শান্ত ও কোমল করে। যার ফলে মাসিকের সমস্যা দূর হয়।

রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রেখে নার্ভতন্ত্র সক্রিয় রাখে: গরম পানি খাওয়ার আরেকটি উপকারিতা হল এটা রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। ফলে পেশী ও স্নায়ু সক্রিয় থাকে। পাশাপাশি বাড়তি চর্বি ভেঙ্গে ফেলায় এগুলো যথেষ্ট উন্নত হয়।

হজম ভাল হয় : খাবার খাওয়ার পরে ঠাণ্ডা জল খেলে খাদ্যের সাথে থাকা চর্বিগুলো জমে যায়৷ এতে পাকস্থলীর গায়ে চর্বির স্তর জমতে থাকে। যা শেষ পর্যন্ত ক্যান্সারে রূপান্তরিত হয়। কিন্তু গরম জল তার উলটো করে। এটা চর্বি ভেঙ্গে তা হজম বা নিঃসরণে সহায়তা করে। ফলে হজম প্রক্রিয়া ভাল হয়।

শরীরের বর্জ্য বের করে দেয় : গরম জল পান করলে শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে ঘাম ঝরে৷ ঘামের সাথেই শরীরের অনেক ধরনের বর্জ্য বের হয়ে যাবে। এতে শরীর সুস্থ থাকে৷

অকাল বার্ধক্য ঠেকায়: শরীরের বর্জ্য বের হতে না পারলে ত্বকের কোষ নষ্ট হয়। ফলে অকালে বয়সের ছাপ পড়ে। গরম পানি এই নষ্ট কোষগুলোকে ঠিক করে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বাড়ায়।

চুলের স্বাস্থ্য এবং জীবনীশক্তি: গরম জল চুলের গোড়ায় থাকা স্নায়ু কার্যকর করে চুল শক্ত করে। ফলে চুল নরম ও উজ্জ্বল থাকে। এটি ফিরে পায় স্বাভাবিক জীবনীশক্তি।

খুশকি দূর করে: গরম পানি মাথার খুলি জলযোজিত করে মাথায় খুশকি হওয়া রোধ করে। অনেক সময় শ্যাম্পু ব্যবহার করেও ফল হয় না, তবে নিয়মিত গরম জল পান করলে সুফল পাওয়া যাবে নিশ্চিত।

নিউজবিজয়২৪.কম/মো.ফারুক হোসেন (নিশাত)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Right Menu Icon