ঢাকা ০১:২৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

newsbijoy24.com

সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

দীর্ঘ লড়াইয়ের পর সকলের প্রার্থনাকে বিফল করে চলে গেলেন ‘জিয়ন কাঠি’-খ্যাত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা।

১ নভেম্বর ব্রেন স্ট্রোক হয় অভিনেত্রীর। এরপরই তাকে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করা হয় অপারেশনও। কিন্তু সংক্রমণ বাড়তে থাকায় তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়।

রবিবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে সবাইকে কাঁদিয়ে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

মাঝে কদিন সুস্থতার দিকে এগোলেও শেষ পর্যন্ত লড়াইটা হেরেই গেলেন ‘ফাইটার’ ঐন্দ্রিলা। গত বুধবার তার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় পর পর দু’বার। মাঝে খবর ছড়িয়ে যায় যে তিনি আর নেই। তখন তার বন্ধু সব্যসাচী জানান, এই খবর মিথ্যে। শুক্রবার তার অবস্থার খানিক উন্নতি হলেও শনিবার ফের অ্যাটাক। ১০ বার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় অভিনেত্রীর। এরপরই আর শেষ রক্ষা করা গেল না।

কয়েক বছর আগেই বছর কুড়ির গণ্ডি পেরিয়েছিলেন ঐন্দ্রিলা, অথচ এই স্বল্প সময়ে কী ভীষণ লড়াই করে গেলেন। দেখিয়ে গেলেন বেঁচে থাকার লড়াই কাকে বলে। প্রথমে ২০১৫ সালে মারণ রোগ ক্যানসার থাবা বসায় তাঁর শরীরে। তারপর ২০২১ আরো একবার তিনি ক্যানসার আক্রান্ত হন। দুইবার ক্যানসারকে হারিয়ে, কেমোথেরাপি করিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠেন। কাজে ফেরেন। একাধিক ওয়েব সিরিজ, সিনেমায় অভিনয় করেন। কিন্তু তারপরই আচমকা তার ব্রেন স্ট্রোক। সেখানেও লড়েছিলেন। তবে লড়াইটা তার আর জেতা হলো না।

‘ঝুমুর’ নামক একটি সিরিয়াল দিয়ে অভিনয় জগতে পা রাখেন ঐন্দ্রিলা। এই সিরিয়ালেই তার বিপরীতে দেখা গিয়েছিল সব্যসাচী চৌধুরীকে। এই ‘বামাখ্যাপা’ সব্যসাচী চৌধুরীই শেষ দিন পর্যন্ত তার পাশে থেকেছেন। ভালোবাসায়, যত্নে ভালো রাখার চেষ্টা করেছেন ঐন্দ্রিলাকে। ঐন্দ্রিলার সঙ্গে তিনিও লড়াই করছিলেন।

সবটাই বিফল করে অন্য জীবনে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী। সকলের প্রার্থনাকে পিছনে ফেলে চলে গেলেন অমৃতলোকে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

Nagad-Fifa-WorldCup

শনিবার বিএনপি’র ১০ দফায় যা থাকছে

সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা

প্রকাশিত সময়: ০২:৩২:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ নভেম্বর ২০২২

দীর্ঘ লড়াইয়ের পর সকলের প্রার্থনাকে বিফল করে চলে গেলেন ‘জিয়ন কাঠি’-খ্যাত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা।

১ নভেম্বর ব্রেন স্ট্রোক হয় অভিনেত্রীর। এরপরই তাকে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করা হয় অপারেশনও। কিন্তু সংক্রমণ বাড়তে থাকায় তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়।

রবিবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে সবাইকে কাঁদিয়ে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

মাঝে কদিন সুস্থতার দিকে এগোলেও শেষ পর্যন্ত লড়াইটা হেরেই গেলেন ‘ফাইটার’ ঐন্দ্রিলা। গত বুধবার তার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় পর পর দু’বার। মাঝে খবর ছড়িয়ে যায় যে তিনি আর নেই। তখন তার বন্ধু সব্যসাচী জানান, এই খবর মিথ্যে। শুক্রবার তার অবস্থার খানিক উন্নতি হলেও শনিবার ফের অ্যাটাক। ১০ বার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় অভিনেত্রীর। এরপরই আর শেষ রক্ষা করা গেল না।

কয়েক বছর আগেই বছর কুড়ির গণ্ডি পেরিয়েছিলেন ঐন্দ্রিলা, অথচ এই স্বল্প সময়ে কী ভীষণ লড়াই করে গেলেন। দেখিয়ে গেলেন বেঁচে থাকার লড়াই কাকে বলে। প্রথমে ২০১৫ সালে মারণ রোগ ক্যানসার থাবা বসায় তাঁর শরীরে। তারপর ২০২১ আরো একবার তিনি ক্যানসার আক্রান্ত হন। দুইবার ক্যানসারকে হারিয়ে, কেমোথেরাপি করিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠেন। কাজে ফেরেন। একাধিক ওয়েব সিরিজ, সিনেমায় অভিনয় করেন। কিন্তু তারপরই আচমকা তার ব্রেন স্ট্রোক। সেখানেও লড়েছিলেন। তবে লড়াইটা তার আর জেতা হলো না।

‘ঝুমুর’ নামক একটি সিরিয়াল দিয়ে অভিনয় জগতে পা রাখেন ঐন্দ্রিলা। এই সিরিয়ালেই তার বিপরীতে দেখা গিয়েছিল সব্যসাচী চৌধুরীকে। এই ‘বামাখ্যাপা’ সব্যসাচী চৌধুরীই শেষ দিন পর্যন্ত তার পাশে থেকেছেন। ভালোবাসায়, যত্নে ভালো রাখার চেষ্টা করেছেন ঐন্দ্রিলাকে। ঐন্দ্রিলার সঙ্গে তিনিও লড়াই করছিলেন।

সবটাই বিফল করে অন্য জীবনে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী। সকলের প্রার্থনাকে পিছনে ফেলে চলে গেলেন অমৃতলোকে।

নিউজবিজয়২৪/এফএইচএন