হাতীবান্ধায় স্কুল মাঠে মিক্সার মেশিনসহ নির্মান সামগ্রী,জানালা ও দরজা বন্ধ করে চলে ক্লাস, কমে গেছে উপস্থিতি

কাজী আলতাব হোসেন, হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি- লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে সড়ক মেরামতের নির্মাণ সামগ্রী মজুদ ও ব্যবহার করায় দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। বিদ্যালয়ে কমে গেছে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি। কর্তৃপক্ষ নিরব জনগনের প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

এ কারণে বিদ্যালয় গুলোর জানালা দরজা বন্ধ করে চালানো হয় শিক্ষা কার্যক্রম। শিক্ষকদের লাইব্রেরীর জানালা বন্ধ করে রাখতে হয়। ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

সরজমিনে দেখা যায়, উপজেলার হাতীবান্ধাহাট হয়ে বড়খাতা বিডিআর গেট পযর্šÍ বাইপাস সড়কটি জাহেদুল ইসলাম সজিব নামে এক ঠিকদার মেরামতের কাজ করছে। উক্ত সড়কে দূরুত্বের মধ্যে রয়েছে উপজেলার পন্ডিতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ধুবনী সরকারী প্রাথমিক বিদালয় ও গহের আলী নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। সুযোগ বুঝে এসব বিদ্যালয় মাঠে মেরামতের পাথর, বালু, বিটুমিনের ড্রাম, মিক্সার মেশিনসহ নির্মাণ সামগ্রী মজুদ রেখে মাঠ ব্যবহার করছে ঠিকাদার। ফলে শিক্ষার্থীরা যেমন মাঠে খেলা ধুলা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। তেমনি অপর দিকে বিদ্যালয়ের পাশেই মিক্সার মেশিনের সাহায্যে ড্রামে করে জ্বালানো হচ্ছে বিটুমিন পাথর। আর বিটুমিন জ্বালানো, মিক্সার মেশিনের ধোয়া ও ধুলোয় বিদ্যালয় ও চারপাশ্বের এলাকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। ফলে ক্লাস চললেও বিদ্যালয় গুলোর জানালা ও দরজা বন্ধ করে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করছে। এসব ধোয়া ও ধুলোর কারণে অনেক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। শ্রেণি কক্ষ গুলোতে কমে গেছে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি।

সোমবার পন্ডিতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণি কক্ষে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা মুখে মাক্স পরে ক্লাস করছে। এসময় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র জাকারিয়া জানায়, আমরা ভালো নেই। আমাদের অনেক সহপাঠী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। একই শ্রেণির ছাত্রী নিশাত আক্তার জানায়, ধোয়া আর ধুলোর কারণে আমরা ক্লাস করতে পারছি না। এভাবে আমাদের শিক্ষার পরিবেশ দূষিত করা হচ্ছে। এতে কারও মাধা ব্যাথা নেই,নিরব রয়েছে শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা দাবী তুলছে অবিলম্বে ঠিকাদারের মালামাল ও মিক্সর মেশিন স্কুল মাঠ থেকে সরিয়ে নিতে হবে। অনুরুপ অবস্থা ধুবনী সরকারী প্রাথমিক বিদালয় ও গহের আলী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের।

বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করা হলে পন্ডিতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইসমত আরা বলেন, প্রায় ১৫ দিন ধরে বিদ্যালয় মাঠে এসব নির্মাণসামগ্রী রেখে কাজ করা হচ্ছে। নির্মাণসামগ্রী রাখায় বিদ্যালয়ের পরিবেশ সহ মাঠ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। দূষিত পরিবেশের মধ্যে ধোয় ও ধুলো থেকে রক্ষা পেতে জানালা বন্ধ করে ক্লাস নিতে হয়। যে কারণে ঠিক ভাবে পাঠদান কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে । শিক্ষার্থীদের অনেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করা হয়েছে কিন্তু কোনো প্রতিকার পাইনি।অপর দিকে ঠিকাদার জাহেদুল ইসলাম সজিব বলেন, এলাকায় কোনো পতিত জায়গা ও মাঠ না থাকায় তাই বিদ্যালয়ের মাঠ ব্যবহার করতে হচ্ছে।

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল আমিন জানান, বিষয়টি তিনি অবগত হয়েছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে উপজেলা প্রকৌশলীকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.